কালিয়ায় নারী ও শিশু নির্যাতন মামলার বাদিকে হত্যার হুমকি

উপজেলা প্রতিনিধি | প্রকাশিত : ২৫ জুলাই ২০২০ , ৭:৩৪ অপরাহ্ণ

স্বামী ও শ্বাশুড়ীর বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়ের করে বিপাকে পড়েছেন নড়াইলের কালিয়ার এক গৃহবধূ। মামলা তুলে নেয়র নির্দেশ না মানায় তাকে হত্যার হুমকি দিয়েছে আসামীরা। ওই ঘটনায় নির্যাতিত গৃহবধু তানজিরা বেগম উপজেলার নড়াগাতি থানায় জিডি করেছেন।
মামলার বিবরনে জানা যায়,উপজেলার পহরডাঙ্গা গ্রামের মৃত সায়েম উদ্দিন শেখের ছেলে হাফিজ শেখের সাথে বাঐসোনা গ্রামের ওমর ফারুক শেখের মেয়ে তানজিরা বেগমের সাথে বিয়ের পর থেকে স্বামী হাফিজ শেখ ও শ্বাশুড়ী রিজিয়া বেগম নানা কায়দায় নির্যাতনের মাধ্যমে যৌতুক আদায় করতে থাকে।

আরো পড়ুন

সর্ব শেষ ১ লাখ টাকা যৌতুক না পেয়ে গত ৩ জুন তানজিরার স্বামী ও শ্বাশুড়ী তাকে বেদম পিটিয়ে ডাইনিং রুমে তালাবদ্ধ করে রাখে। খবর পেয়ে পরদিন ৪ জুন তানজিরার বাবা ওমর ফারুক পুলিশের সহায়তায় আহত তানজিরাকে আটক অবস্থা থেকে মুক্ত করে কালিয়া হাসপাতালে ভর্তি করেন। ওই ঘটনায় ৭ জুন তানজিরা বাদি হয়ে পাষন্ড স্বামী ও শ্বশুড়ী রিজিয়া বেগমের নামে নড়াগাতি থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন ২০০৩ এর ১১(ক)/৩০ ধারায় একটি মামলা দায়ের করেন। আসামীরা আদালত থেকে জামিনে বেরিয়ে আসার পর থেকে তানজিরাকে মামলা তুলে নেয়ার চাপ দিয়ে আসছে। মামলা তুলে না নিলে তাকে হত্যার হুমকি দেয়া হয়েছে বলে ওই জিডিতে উল্লেখ করা হয়েছে। মামলার বাদি তানজিরা বেগম বলেছেন, আমাকে অমানবিক নির্যাতন করা হয়েছে। মামলা দায়ের করেও স্বস্তিতে নেই। দুটি সন্তান নিয়ে আমি এখন যাবো কোথায়। আমি ন্যায় বিচার চাই।
নড়াগাতি থানার ওসি রোকসানা খাতুন বলেছেন, তানজিরার দায়েরকৃত শুক্রবারের জিডিটি মামলার তদন্তকারি কর্মকর্তার উপর ন্যান্ত করা হয়েছ। তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

দেশজুড়ে
২৫ জুলাই ২০২০